সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে কথা বন্ধ ত্রিশলার

সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে কথা বন্ধ ত্রিশলার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

বড় মেয়ে ত্রিশলার সঙ্গে নাকি সমস্ত সম্পর্ক ভেঙে দিয়েছেন অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত | ক’দিন ধরে এমনটাই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে বি-টাউনে | সঞ্জয় দত্ত ও তাঁর প্রথম স্ত্রী রিচা শর্মার মেয়ে ত্রিশালা | মায়ের মৃত্যুর পর ত্রিশলা বড় হয়েছেন আমেরিকায় তাঁর দাদু-দিদার কাছে | বর্তমানে সেখানেই থাকেন উনি | তবে বাবা সুপারস্টার হওয়ার সুবাদে ত্রিশালা ভারতে রীতিমতো সেলেব্রিটি স্টেটাস পেয়েছেন।

সম্প্রতি একটি বিনোদন ওয়েব পোর্টালে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী ত্রিশলার সঙ্গে সব সম্পর্ক নাকি ভেঙে দিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত | ত্রিশলার জীবনে কী ঘটছে তা-ও জানেন না তিনি। কারণটা দূরত্ব নাকি অন্য কিছু, তা অবশ্য় এখনও জানা যায়নি। বাবাকে ‘ড্যাডি ডিউক্স’ বলে সম্বোধন করেন ত্রিশলা | সেই ‘ড্যাডি ডিউক্স’-এর সঙ্গে ত্রিশালার কী হল‚ তা নিয়ে ধোঁয়াশায় রয়েছেন সঞ্জয় দত্তের ভক্তরাও |

বাবার সঙ্গে সম্পর্ক প্রসঙ্গে,গত বছর সোশ্যাল মিডিয়াতে ত্রিশলা বলেছিলেন ‘আমার ধারণা আমাদের সম্পর্ক ভাল | আমি কোনওদিন বাবার সঙ্গে থাকিনি | অবশ্য একদম থাকিনি বললে ভুল হবে। তবে তখন আমি অনেক ছোট ছিলাম‚ ফলে সেই সব কথা আমার মনে নেই |’

সম্প্রতি বয়ফ্রেন্ডের মৃত্যুর পর সোশ্যাল মিডিয়া একটি স্টেটাস দেন ত্রিশালা | সেখানে উনি লেখেন, বয়ফ্রেন্ডের মৃত্যুতে উনি ভেঙে পড়েছেন | সঙ্গে এও জানান যে, কাছের মানুষ দূরে চলে গেলেও তিনি কোনওদিন তাঁকে ভুলতে পারবেন না |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Social isolation to prevent coronavirus

অসামাজিকতাই একমাত্র রক্ষাকবচ

আপনি বাঁচলে বাপের নাম— এখন আর নয়। এখন সবাই বাঁচলে নিজের বাঁচার একটা সম্ভবনা আছে। সুতরাং বাধ্য হয়ে সবার কথা ভাবতে হবে। কেবল নিজের হাত ধোওয়ার ব্যবস্থা পাকা করলেই হবে না। অন্যের জন্য হাত ধোওয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। এক ডজন স্যানিটাইজ়ার কিনে ঘরে মজুত রাখলে বাঁচা যাবে না। অন্যের জন্য দোকানে স্যানিটাইজার ছাড়তে হবে। আবেগে ভেসে গিয়ে থালা বাজিয়ে মিছিল করলে হবে না। মনে রাখতে হবে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, জানলায় বা বারান্দায় দাঁড়িয়ে থালা বাজাতে। যে ভাবে অন্যান্য দেশ নিজের মতো করে স্বাস্থ্যকর্মীদের উদ্বুদ্ধ করছে। রাস্তায় বেরিয়ে নয়। ঘরে থেকে।