রেড মিট কি একেবারেই বাদ ???

1903
যর্থাথ রোববার

অনেকেই ‘রেড মিট’ (মাটন‚পর্ক‚ বিফ এবং ল্যাম্ব) খেতে খুব ভালবাসেন| সপ্তাহে অন্তত এক দিন ‘রেড মিট’ না হলে ঠিক জমে না| তবে একই সঙ্গে নিশ্চই অনেকেই বলেন ‘রেড মিট’ খাওয়া বন্ধ করে দিতে কারণ এটা খুব অস্বাস্থ্যকর| আমাদের কি সত্যই মাংস খাওয়া বন্ধ করা উচিত? নাকি অল্প পরিমাণে খেতে পারি?

আমরা সবাই জানি ‘রেড মিট’-এ প্রচুর পরিমাণে স্যাচুরেটেড ফ্যাট আর কোলেস্টেরল থাকে| এ ছাড়াও এতে বেশি পরিমাণে সোডিয়াম থাকে যা রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়| আর ‘রেড মিট’ খাওয়ার ফলে হার্টের নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে‚ অত্যধিক মোটা হওয়া এমনকি গাউটও হতে পারে| তা হলে আমাদের কী করা উচিত?

অনেক ডায়েটেশিয়ান মনে করেন ডায়েটে অল্প পরিমাণে ‘রেড মিট’ থাকা উচিত| মাংসর সঙ্গে যদি বিভিন্ন শস্য দানা‚ সব্জি খাওয়া হয় তাহলে শরীরের কোনও ক্ষতি হয় না| ‘রেড মিট’ এ প্রচুর পরিমাণে আয়রন‚ জিঙ্ক‚ ভিটামিন ডি আর ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া যায় যা শরীরে জন্য দরকার| কিন্তু একই সঙ্গে মনে রাখতে হবে কোনও মতেই সপ্তাহে দু’দিনের বেশি ‘রেড মিট’খাওয়া যাবে না|

অন্য দিকে অনেক ডায়েটেশিয়ানরা মনে করেন ডায়েট থেকে একেবারেই ‘রেড মিট’ বাদ দেওয়া উচিত| কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট থাকে আর রান্না করতেও অনেক বেশি পরিমাণে তেল লাগে| এ ছাড়া ‘রেড মিট’-এ টক্সিন থাকে যা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর|

কিন্তু একই সঙ্গে ওঁরা জানিয়েছেন আপনি যদি কোনও মতেই ডায়েট থেকে ‘রেড মিট’ বাদ না দিতে পারেন তা হলে অর্গ্যানিক মাংস খাওয়া উচিত| ‘গ্রাস ফেড অ্যানিম্যাল’ বা প্রকৃত তৃণভোজী প্রাণীদের মাংসে স্যাচুরেটেড ফ্যাট কম থাকে এবং ওমেগা -৩ ফ্যাটি অ্যাসিডও বেশি থাকে‚ যা হার্টের পক্ষে ভাল| আরও একটা কথা মনে রাখতে হবে রান্না করার আগে যতটা পারবেন ফ্যাট কেটে বাদ দিতে হবে| এবং সঙ্গে অবশ্যই স্যালাড খান‚ যাতে ক্ষতির পরিমাণ কম হয়|

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.