সেজে উঠুন ডুয়াল টোনে

রেড লিপস, স্মোকি আইস, ন্যুড মেক-আপ… না! এখন আর এই ট্রেন্ড আঁকড়ে বসে থাকলে হবে না। সাজগোজের সংজ্ঞা তো রোজই বদলাচ্ছে। কাল যা একেবারে সুপারহিট, আজ আবার তাই পুরনো। স্মার্টফোন, স্মার্ট টিভির যুগে স্মার্ট মেক-আপও তো করতে হবে। এবার পুজোয় তাই নতুন কিছু হয়ে যাক! সেই একঘেয়ে চির পরিচিত মেক-আপ টিপস আর দেব না। গোলাপি, পিচ রঙের লিপস্টিক, ঘন কাজল চোখের দিন শেষ। এখন সময় এক্সপেরিমেন্টাল হওয়ার। আর সত্যিই তো একটা শেডে আটকে থাকবেনই বা কেন, যখন ডুয়াল টোনে হয়ে উঠতে পারেন আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু।

ডুয়াল লিপস

উপরে কমলা, নীচে লাল, দারুণ কম্বিনেশন। না! শাড়ি বা ড্রেসের কথা বলছি না। আপনার ওষ্ঠ যুগলের কথা বলছি। ঠোঁটের সাজ নিয়ে পরীক্ষা করার এই তো সময়। মনে আছে কান ফিল্ম ফেস্টিভালে অভিনেত্রী ঐশ্বর্য রাই কেমন বেগুনি ঠোঁটে হাজির হয়েছিলেন। মানছি কম ট্রোল হননি তার জন্য। তবে অন্য কিছু ট্রাই করার জন্য আমি অন্তত তাঁকে সাধুবাদ জানাবো। আপনাদেরও বলব, চেনা খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসুন তো দেখি। সে আপনি ঐশ্বর্য, দীপিকা, সোনম নাই বা হলেন, তাই বলে গ্ল্যামার কোশেন্ট বাড়াতে দোষ কোথায়। তাই তো চাই ডুয়াল টোনের লিপ কালার। ওয়ের্স্টান ওয়্যারের সঙ্গে তো দারুণ, একটু সাহসী হয়ে শাড়ির সঙ্গেও সেজে উঠুন নতুন রূপে। পুজো মণ্ডপে আপনি যে নজর কাড়বেনই, হলফ করে বলতে পারি। উপরের ছবির মতো বাইরে দিয়ে অক রঙের লিপস্টিক দিয়ে আউটলাইন করতে পারেন আর ভিতরে ভরতে পারেন অন্য রং। আবার নীচের ছবিটির মতো ওপরের ঠোঁটে লাল আর নীচের ঠোঁটে একেবারে কনট্রাস্টিং বেগুনি রঙের ছোঁয়া রাখতে পারেন। দুটো ছবিতেই কিন্তু কালার কম্বিনেশন এক, শুধু লিপস্টিক পরার কায়দাটা আলাদা। চোখে হালকা সোনালি রঙের আভাস। শাইনি গোলন্ডেন আই শ্যাডোর ব্যবহারে ঠোঁটের মেক-আপ যেন আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে।

ছবি সোজন্য: পিনটারেস্ট

টু টোন আইজ

ঠোঁটের মতো চোখেও রঙের খেলা। অপশন কিন্তু প্রচুর। দু’ রঙের কাজল লাগাতে পারেন। আবার আইলাইনার দিয়ে তৈরি করতে পারেন ডুয়াল স্টেটমেন্ট। মিক্স-ম্যাচ করাটা তো হাতের মধ্যে। ধরুন নীল রঙের আইলাইনার দিয়ে চোখের পাতায় আউটলাইন করলেন। আই শ্যাডো সাদা রঙের ব্যবহার করতে পারেন। এ রকম কম্বিনেশন যে চট করে দেখতে পারবেন না, তা নিশ্চিত হয়ে বলতে পারি। আবার দু’ রকম রঙের আই শ্যাডো ব্লেন্ড করেও কনট্রাস্টিং আই মেক-আপ করতে পারেন। এই যেমন নীচের ছবিতে ম্যাট সবুজ ও গোলাপি রঙের আই শ্যাডো লাগানো হয়েছে চোখের পাতায়। চোখের পাতার অর্ধেক অংশ সবুজ ও অর্ধেক গোলাপি। দেখতে যে দারুণ লাগছে তা তো মানবেন।

ছবি সৌজন্য: পিনটারেস্ট

আবার এই ছবিতে গ্লিটারি আই শ্যাডো ব্যবহার করা হয়েছে। সোনালি আর গোলাপির কম্বিনেশনও নেহাত মন্দ নয়। ব্লেন্ডিংটা কিন্তু এই ক্ষেত্রে ভারী গুরুত্বপূর্ণ। না হলে পুরো সাজটাই যে মাটি হয়ে যাবে।

ছবি সৌজন্য: পিনটারেস্ট

ডাবল নেলস

ঠোঁট আর চোখ তো হল, কিন্তু নখই বা বাদ যায় কেন। আর এখনও জেল নেল, নেল আর্টের রমরমা। সেখানে ডুয়াল টোনে নখের সাজ তো রীতিমতো ছেলেখেলা। যে কোনও দুটো শেডের নেলপলিশ দিয়ে তৈরি করতে পারেন এই লুক। শুধু পোশাকের রংটা মাথায় রাখবেন। নীচের ছবিতে যেমন কালো আর পিচ রং ব্যবহার করে হয়েছে।

ছবি সৌজন্য: পিনটারেস্ট

আবার সব নখে একটা রং করে, একটা নখে আলাদা রং করতে পারেন। এতেও কিন্তু একটা আলাদা লুক তৈরি হবে। এই ছবিতে যেমন প্রথমায় লাল নেল পলিশ লাগানো হয়েছে আর বাকিগুলোয় করা হয়েছে থ্রি ডি নেল আর্ট।

ডুয়াল টোন মেক-আপ করাটা কিন্তু খুব কঠিন নয়। খালি কালার প্যালেটটা ঠিক মতো বাছতে হবে। কোন রঙের সঙ্গে কোন রঙের ভাব ভালবাসা আছে, তা বুঝে নিতে হবে। এর সঙ্গে মাথায় রাখবেন পোশাকের রং, আপনার কমপ্লেকশন আর কোন অনুষ্ঠানের জন্য সাজছেন, সেই খুঁটিনাটিগুলো। দেখবেন চেনা ‘আমি’ কেমন হঠাৎ করেই বদলে যাচ্ছে।

তা হলে আর অপেক্ষা কেন। নেমে পড়ুন ময়দানে। পুজোর তা আর ক’টা দিন বাকি। ড্রেস রিহার্সাল করতে হবে না!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

afgan snow

সুরভিত স্নো-হোয়াইট

সব কালের জন্য তো সব জিনিস নয়। সাদা-কালোয় উত্তম-সুচিত্রা বা রাজ কপূর-নার্গিসকে দেখলে যেমন হৃদয় চলকে ওঠে, এ কালে রণবীর-দীপিকাকে দেখলেও ঠিক যেমন তেমনটা হয় না। তাই স্নো বরং তোলা থাক সে কালের আধো-স্বপ্ন, আধো-বাস্তব বেণী দোলানো সাদা-কালো সুচিত্রা সেনেদের জন্য।স্নো-মাখা প্রেমিকার গাল নিশ্চয়ই অনের বেশি স্নিগ্ধ ছিল, এ কালের বিবি-সিসি ক্রিম মাখা প্রেমিকাদের গালের চেয়ে।