পুল্লেলা গোপীচাঁদের ভূমিকায় অক্ষয় কুমার?

পুল্লেলা গোপীচাঁদের ভূমিকায় অক্ষয় কুমার?

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

পি ভি সিন্ধুর ঐতিহাসিক জয়ের রেশ এখনও কাটেনি। সারা দেশ থেকে অভিনন্দনের বন্যা বয়ে গেছে। বেশ কিছুদিন আগে শোনা গেছিল যে ‘সিম্বা’, ‘দাবাং’, ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ খ্যাত অভিনেতা সোনু সুদ পি ভি সিন্ধুর উপর বায়োপিক বানাবেন। সিন্ধুর ব্যাডমিন্টিন চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার পর সোনু বলেছেন, যে এই বায়োপিকের কাজ জোর কদমে চলছে। আর সিন্ধুর এই জয়ই হবে ছবির ক্ল্যাইম্যাক্স। শোনা যাচ্ছে অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন নাকি অভিনয় করতে পারেন সিন্ধুর ভূমিকায়। দীপিকা সিন্ধুর মতোই লম্বা, রাজ্য স্তরে ব্যাডমিন্টন খেলার অভিজ্ঞতাও আছে। বাবা প্রকাশ পাডুকোনে বিখ্যাত ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় হওয়ার সুবাদে দীপিকা অনেক টিপসও পেয়ে যাবেন তাঁর কাছে। অভিনেত্রী তাপসী পন্নুর নামও ঘোরাফেরা করছে। তবে সোনু জানিয়েছেন, এ সব স্রেফ গুজব। যতক্ষণ না চিত্রনাট্য পুরো সাজানো হচ্ছে, ততক্ষণ মুখ্য ভূমিকায় কে অভিনয় করবেন, তা নিয়ে তিনি ভাবছেন না। সোনু চান ছবিটিতে সিন্ধুর পুরো জার্নিকে দেখাতে, তাই চিত্রনাট্যে কোনও ফাঁক তিনি রাখতে চান না। আনুমানিক ২০২০-র মাঝামাঝি এই ছবির শুটিং শুরু হবে।

কয়েক মাস আগে এই সিনেমা প্রসঙ্গে সোনু জানিয়েছিলেন যে সিন্ধুর কোচ পুল্লেলা গোপীচাঁদের ভূমিকায় তিনি নিজে অভিনয় করবেন। সিন্ধুর জীবেন গোপীচাঁদের অবদান অনস্বীকার্য। এখন শোনা যাচ্ছে সোনু নন, সুপারস্টার অক্ষয় কুমার এই ভূমিকায় অভিনয় করবেন। ইদানীংকালে অক্ষয় কুমার খুব বেছে বেছে সিনেমা করছেন। আর প্রতিটি সিনেমার মাধ্যমে সামাজিক বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। ফলে সিন্ধুর বায়োপিকে উনি অভিনয় করলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। টুর্নামেন্ট জয়ের পর টুইটারে উনি সিন্ধুকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন।

শোনা গেছে গোপীচাঁদ নিজেও চান অক্ষয় তার ভূমিকায় অভিনয় করুন। উনি অক্ষয় কুমারের সিনেমা দেখেন এবং পছন্দ করেন। উনি মনে করেন অক্ষয় এই রোলটির সঙ্গে ন্যায় করতে পারবেন। অক্ষয় যে সিন্ধুর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন, তাও জানিয়েছেন উনি। অক্ষয় যদি এই ছবিতে অভিনয় করতে রাজি হন, তা হলে আরও একটি পালক যে তাঁর মুকুটে জুড়বে বলাই বাহুল্য।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।