স্বগত স্বীকার (কবিতা)

স্বগত স্বীকার (কবিতা)

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Cover photo for Bengali Poetry
ছবি সৌজন্য – wikipedia
ছবি সৌজন্য - wikipedia
ছবি সৌজন্য – wikipedia
ছবি সৌজন্য – wikipedia
ছবি সৌজন্য - wikipedia
ছবি সৌজন্য – wikipedia

যে-কটা সীমিত শব্দে প্রতিদিন জীবন লিখি

তার চেয়েও সীমিতকাল এই নিজের জন্য বাঁচা।

যদি ভোরের আলোতে বোঝা যেত সন্ধে বা রাতের উপমা,

জীবনের মুখোমুখি হিসেবের খাতা খুলে বসে

বাজি রাখা যেত সংসার সুখ,

আমার একান্ত নির্জন, বৃথা ঘর বাঁধত না

কোনও বাতিল স্বপ্নের কথা মনে রেখে।

 

অসুখের ইতিহাসে নীরব কান্নার বিবরণ আছে, জেনো।

অভিমান ঘনিষ্ঠ হলে যে ব্যক্তিগত সুখ হয়

তার নীচে জমা থাকে এক-একটা এপিসোডিক বিরতি

নিশ্চিত আশ্রয় থেকে ছদ্ম-সুখে,

নিজস্ব পরিধি ছেড়ে কৌণিকবিন্দুতে-

আজ তবে শূন্যের কথা কেন?

 

জানি, থেকে যাবে স্রোত, বিপরীতে।

 

আমার চোখের দিকে তোমার চোখ,

এই আমার আজন্ম চরাচর।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

sharbat lalmohon babu

ও শরবতে ভিষ নাই!

তবে হ্যাঁ, শরবতকে জাতে তুলে দিয়েছিলেন মগনলাল মেঘরাজ আর জটায়ু। অমন ঘনঘটাময় শরবতের সিন না থাকলে ফেলুদা খানিক ম্যাড়মেড়ে হয়ে যেত। শরবতও যে একটা দুর্দান্ত চরিত্র হয়ে উঠেছে এই সিনটিতে, তা বোধগম্য হয় একটু বড় বয়সে। শরবতের প্রতি লালমোহন বাবুর অবিশ্বাস, তাঁর ভয়, তাঁর আতঙ্ক আমাদেরও শঙ্কিত করে তোলে নির্দিষ্ট গ্লাসের শরবতের প্রতি।…