পুজোর আগে ভ্যানিশ!

434

গালে ব্রণ ও ব্রণের দাগ থাকলে পুজোর সাজগোজ একেবারেই মাটি! পুজোতে সেলফি রেডি হতে চাইলে ব্রণ ও ব্রণের দাগ তাড়াতাড়ি দূর করে ফেলতে হবে| এখনও হাতে বেশ কয়েক দিন সময় আছে তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই| যদিও এই সময়ের মধ্যে পুরোপুরি ব্রণর সমস্য়া নিরাময় করা বেশ কঠিন| কিন্তু এখন থেকে সঠিক যত্ন নিলে এই কয়েক সপ্তাহতেই তফাত দেখতে পাবেন|

আপনার যদি ব্রণর সমস্যা থাকে‚ তা হলে নিয়মিত একটা অ্যান্টি-অ্যাকনে রুটিন মেনে চলতে হবে| একই সঙ্গে ব্যবহার করতে হবে সঠিক প্রডাক্ট| আজকে রইলো দু’টি ঘরোয়া ফেস প্যাকের হদিস যার সাহায্যে ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর ফেলতে পারবেন পুজোর আগেই|

আপনার ব্রণর সমস্যা থাকুক বা না থাকুক ত্বকের সঠিক পরিচর্চা করাটা খুবই জরুরি| এর প্রথম ধাপ হল ত্বক পরিষ্কার রাখা| আপনার ত্বক অনুযায়ী সঠিক ফেস ওয়াশ নির্বাচন করুন| মুখ মুলতানি মাটি দিয়েও পরিষ্কার করতে পারেন| তবে যাদের ড্রাই স্কিন তাদের মুলতানি মাটি এড়িয়ে চলাই ভাল| এর পরের ধাপ হল টোনিং| যাদের ব্রণর সমস্যা আছে  তারা ঘরে ১০-১২টা তাজা নিম পাতা এক কাপ জলে ফুটিয়ে নিন| জল ঠান্ডা করে কাঁচের বোতলে ভরে তা ফ্রিজে রেখে দিন| ভাল করে ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে দিনে দু’বার এই টোনার লাগান| এই টোনার নিয়মিত ব্যবহার করলে ব্রণের দাগ সহজেই মিটে যাবে| একই সঙ্গে উপস্থিত ব্রণ তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে| এর পর আসে ময়শ্চারাইজিং| আপানার ত্বকে ব্রণ থাকলেও মুখে ময়শ্চরাইজার লাগাতে ভয় পাবেন না| এর জন্য ব্যবহার করুন নিম জেল| নিম জেল ব্রণ দূরে রাখে একই সঙ্গে ত্বক নরম রাখতে সাহায্য করবে| সপ্তাহে অন্তত এক দিন ত্বক থেকে মরা কোষ তুলে ফেলতে ত্বক এক্সফলিয়েট করুন| তবে যে জায়গাগুলোতে ব্রণ হয়েছে সেই জায়গা এড়িয়ে চলুন|

এ বার আসা যাক ফেসপ্যাকে:

১) ব্রণের দাগ সহজেই মিটিয়ে ফেলতে মধু‚ লেবু আর ওটসের প্যাক খুবই কার্যকরী| এর জন্য অল্প ওটস গুঁড়ো করে নিন| তিন চা চামচ ওটস গুঁড়ো অল্প জলে পাঁচ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন| এর পর এতে এক চা চামচ মধু ও কয়েক ফোঁটা পাতি লেবুর রস মিশিয়ে নিন| ভাল করে মিশিয়ে এই প্যাক মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন| ১৫ মিনিট রেখে হাত জলে ভিজিয়ে হাল্কা হাতে ম্যাসাজ করে জল দিয়ে ধুয়ে নিন|

মধুতে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণ আছে একই সঙ্গে ত্বক নরম রাখতেও সাহায্য করে মধু| অন্য দিকে ওটস গুঁড়ো অত্যধিক তেল শোষণ করে নেয়‚ একই সঙ্গে ত্বকের মরা কোষ তুলে ফেলতেও সাহায্য করে| অন্য দিকে লেবুর রস ব্রণের দাগ হাল্কা করে|

২) কাঁচা হলুদ ও অ্যালোভেরা প্যাক : ব্রণ নিয়ন্ত্রণ করতে হলুদ ও অ্যালোভেরার জুড়ি মেলা ভার| এর জন্য চাই কাঁচা হলুদ এবং এক চা চামচ অ্যালোভেরা জেল| হলুদ মিহি করে বেটে তাতে অ্যালোভেরা মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন| প্যাক শুকিয়ে গেলে জলে হাত ভিজিয়ে মুখ ম্যাসাজ করে নিয়ে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন| কাঁচা হলুদের অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণ ব্রণ কমাতে সাহায্য করে| একই সঙ্গে ত্বক উজ্জ্বল করতেও সাহায্য করে হলুদ| অন্য দিকে অ্যালোভেরা ত্বক দ্রুত সাড়িয়ে তোলে ও আর্দ্রতা দেয় |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.