রূপচর্চায় চা

272

বাঙালি চা-খোর। শুনতে অপবাদ মনে হলেও কথাটা কিন্তু ঘোর সত্যি। সকালে ঘুম থেকে ওঠা ইস্তক সারাদিনে যে আমরা ক’ কাপ চা খাই তার ইয়ত্তা নেই। অফিস মিটিং থেকে শুরু করে বন্ধুদের আড্ডা, সর্বত্রই তার উপস্থিতি অবাধ। আর চা-র গুণপনাও নেহাত কম নয়। সে নয় আর এক দিন বলব। কিন্তু জানেন কি, শুধু শরীর, মন-মেজাজ চনমনে রাখতেই নয়, ত্বক বা চুলের যত্নেও চা দারুণ ভাবে কাজে আসতে পারে? কীভাবে? চা-এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ত্বক স্বাস্থ্যোজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে। ত্বকে বয়সের ছাপ রুখতেও চা দারুণ কার্যকর। গ্রিন টি আর কালো চা-এ ক্যাফেইন, ক্যাটকিন ও পলিফেনল (অ্যান্টি অক্সিডেন্ট) থাকে, যা ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমায়, ত্বকে বয়সের ছাপ সহজে পড়তে দেয় না। টোনার হিসেবেও চা দারুণ। সুতরাং আজ থেকে চা-কে শুধু পানীয় হিসেবে নয়, রূপচর্চার অন্যতম উপাদান হিসেবে গ্রহণ করুন। চা-এর উপকারিতা নিয়ে আসুন আরও একটু বিশদে আলোচনা করি।


চোখের ফোলা ভাব ও ডার্ক সার্কল কমায়-চা-এ উপস্থিত ক্যাফেইন ত্বকের নীচে থাকা রক্তনালী সঙ্কুচিত করে চোখের আশেপাশে হওয়া ডার্ক সার্কল দূর করতে সাহায্য করে। চা-এর ট্যানিন আবার চোখের ফোলা ভাব কমায়। দু’টো টি ব্যাগ হালকা ভিজিয়ে চোখের উপর রেখে দিন। পাঁচ থেকে ১০ মিনিট রাখুন। দেখবেন নিয়মিত ব্যবহারে চোখের ফোলা ভাব কমে যাবে এবং ডার্ক সার্কলও আগের চেয়ে অনেক হালকা হয়ে যাবে।


সানবার্নে আরাম দেয় –চাএ উপস্থিত ট্যানিক অ্যাসিড সূর্যের ক্ষতিরিক্ত রশ্মি থেকে হওয়া সানবার্ন দূর করতে সাহায্য করে। এমনকি ত্বকের দাগছোপও অনেকটা কমিয়ে দেয়। প্যানে চা পাতা হালকা ফুটিয়ে নিন। ঠান্ডা হলে, একটা তোয়ালে সেই জলে ডুবিয়ে ত্বকের প্রভাবিত অংশে ৩০ মিনিট রেখে দিন। চাইলে ত্বকের লালচে পোড়াভাব কমানোর জন্য সরাসরি টি ব্যাগও ব্যবহার করতে পারেন।


টোনার হিসেবে কাজ করে-বাড়িতে টোনার ফুরিয়ে গেলে চা পাতা বা টি ব্যাগের উপর ভরসা করতে পারেন। চা-এ অ্যাস্ট্রিনজেন্ট থাকায় তা টোনার হিসেবে খুব ভাল ফল দেয়। মুখ পরিষ্কার তো হয়ই, সঙ্গে তেলতেলে ভাবও দূর হয়। টি ব্যাগ ভিজিয়ে মুখের উপর ঘষে নিন। তারপর শুকনো তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন। দেখবেন মুখ কীরকম ঝলমল করছে।


স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে-ব্যবহারের পর কি টি-ব্যাগ ফেলে দেন? তা হলে জানবেন, এক দারুণ স্ক্রাবার আপনি বাতিলের দলে ফেলে দিচ্ছেন। স্ক্রাবার হিসেবে চা খুব ভাল কাজ করে। ব্যবহার করা টি-ব্যাগ ভাল করতে শুকনো হতে দিন। এবার মুখটা কেটে চা বার করে মুখে ঘষে নিন। জল দিয়ে ধুয়ে ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। ত্বক কোমল ও মসৃণ হবে।


ত্বকের তেলতেলে ভাব দূর করে-জ্যাসমিন টি ত্বকের জন্য খুবই ভাল। এর জীবাণুনাশক গুণ ত্বকের চিটচিটে, তেলাভাব কমিয়ে ত্বক পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। জ্যাসমিন টি ফুটিয়ে ঠান্ডা করে নিন। তৈলাক্ত, ব্রণ প্রবণ ত্বকে লাগিয়ে নিন। দেখবেন তেলতেলে ভাব অনেকটা কমে যাবে। ব্রণ হওয়ার প্রবণতাও কমবে।


মুখ পরিষ্কার করে- সাদা চা-এ গ্রিন টি-র তুলনায় বেশি পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে। ফলে ত্বক অনেক গভীর ভাবে পরিষ্কার করতে পারে, সঙ্গে ত্বকে পুষ্টিও জোগায়। সাদা চা ফুটিয়ে নিয়ে চা পাতা ছেঁকে নিন। এবার ভেজা চা পাতা মিক্সিতে বেটে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিন। ঠান্ডা হলে মুখে লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। তারপর ধুয়ে ফেলুন। মুখ একেবারে চকচক করবে।


ফাটা ঠোঁট ঠিক করে-ঠোঁট খুব শুকনো হয়ে ফেটে গেলে গরম জলে ডোবানো গ্রিন টি ব্যাগ ঠোঁটের উপর রেখে দিন। ঠোঁটের শুষ্কতা কমবে এবং আরাম হবে।


চুল পরিষ্কার করে– চুল পরিষ্কার করতে, চুল পড়া কমাতে ব্ল্যাক টি-র কোনও বিকল্প নেই। চা পাতা ফুটিয়ে ঠান্ডা হতে দিন। জল একটা বোতলে ভরে চুলে স্প্রে করে নিন। যত্ন করে স্ক্যাল্পে লাগাবেন। নিয়মিত ব্যবহারে আপনি নিজেই তফাতটা বুঝতে পারবেন।



চুল রং করার প্রাকৃতিক উপায়-চুলে কালো রং করতে চাইলে, হেনা আর কালো চা মিশিয়ে নিন। তারপর চুলে লাগান। চুলের কালো রং অনেক দিন থাকবে।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.