অ্যাসিডিটি কমানোর ঘরোয়া উপায়

4009

অ্যাসিডিটি বা অম্বলের সমস্যায় কম বেশি আমাদের সবাইকে ভুগতে হয়| ভারী বা মশলাদার খাবার খাওয়ার ফলে বা অনিয়মিত খাদ্যাভাস‚ দুঃচিন্তা‚ ব্যায়াম না করা‚ অতিরিক্ত মদ্যপান এই সব থেকে অম্বল হতে পারে| আমাদের পাকস্থলিতে অতিরিক্ত অ্যাসিড উৎপন্ন হওয়ার ফলে পেট ব্যথা‚ গ্যাস‚ বমিবমি ভাব‚ বুক জ্বালা‚ মুখ দুর্গন্ধ বা অন্য সমস্যা দেখা দিতে পারে| অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকেই ওষুদের সাহায্য নেন|  অম্বল কিন্তু কিছু সহজ ঘরোয়া উপায়ের সাহায্যেও কমানো যায়| আসুন জেনে নিন কয়েকটা অ্যাসিডিটি নিরাময়ের সহজ কৌশল|

১)কলা: সঙ্গে সঙ্গে কলা খেয়ে নিন| কলাতে উপস্থিত স্টার্চ অ্যাসিডিটির উপশম  করে| তবে খাওয়ার আগে দেখে নেবেন কলাটা যেন পাকা হয়| আধপাকা কলা খেলে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠতে পারে|

২) গরম জল: সাধারণত কুসুম গরম জল রাতে ঘুমনোর আগে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে খেলে অ্যাসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়|

৩) দই: দইতে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়া আমাদের পেটের জন্য উপকারী| অম্বল হলে অল্প একটু দই খেয়ে নিন| দেখবেন সঙ্গে সঙ্গে আরাম পাবেন|

৪) ঠান্ডা দুধ: দুধে উপস্থিত ক্যালসিয়াম অ্যাসিড তৈরিতে বাধা দেয়| তাই অ্যাসিডিটি হলে এক গ্ল্যাস ঠান্ডা দুধ পান করুন|

৫) আপেল সাইডার ভিনিগার: এর ক্ষারধর্মী প্রভাব অ্যাসিডিটি দূর করতে সাহায্য করে| যাদের অ্যাসিডিটির সমস্যা আছে তারা সকালে উঠে খালি পেটে ১-২ চা চামচ আপেল সাইডার ভিনিগার এক কাপ জলে মিশিয়ে পান করুন|

৬) তুলসি পাতা: অ্যাসিডিটির লক্ষণ দেখা দিলেই ৫-১০টা পাতা ভাল করে ধুয়ে চিবিয়ে খেয়ে ফেলুন| নিমেষেই বুক জ্বালা‚ পেট ফাঁপা ও বমি ভাব উপশম হবে| চা বানিয়েও খেতে পারেন| এক কাপ জলে কয়েকটা তুলসী পাতা ফুটিয়ে খেতে পারেন চাইলে তাতে একটু মধু ও মিশিয়ে নিতে পারেন|

৭) দারুচিনি ; হজমের জন্য খুব ভাল‚ এটি প্রাকৃতিক অ্যান্টাসিড| এক কাপ জলে আধা চা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো দিয়ে ফুটিয়ে নিয়ে ঠান্ডা করে দিনে ২/৩বার খতে হবে|

৮) জিরে : সহজেই খাবার হজম করতে জিরের জুড়ি নেই| দেড় কাপ জলে এক চা চামচ জিরে ফুটিয়ে নিন| জল ঠান্ডা করে সামান্য চিনি বা মধু মিশিয়ে খাবার পর এই জল পান করুন|

৯) অ্যালোভেরা জুস : বুক জ্বালা‚ পেট ব্যাথা‚ গা বমিবমি থেকে উপশম পেতে অ্যালোভেরা জুস পান করুন| তবে খাবার আগে দেখে নেবেন অ্যালোভেরা জুস যেন ১০০ শতাংশ বিশুদ্ধ হয়|

১০) মৌরি : তুলসী পাতার মতো মৌরিতেও রয়েছে সহজে খাবর হজম করার ক্ষমতা | ভারী খবার খাওয়ার পর তাই মৌরি খাওয়ার চল বহু পুরনো| মৌরি চিবিয়ে খেতে পারেন বা দু’চা চামচ মৌরি এক কাপ গরম জলে কিছু ক্ষণ ভিজিয়ে রেখে‚ জল ছেঁকে তাও কয়েকবার পান করতে পারেন|

অ্যাসিডিটি কমাতে এই পদ্ধতিগুলোর সাহায্য নিতে পারেন| কিন্তু যদি দেখেন ২/৩ দিন পরও সমস্যা থেকেই যাচ্ছে তা হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.